Print
প্রচ্ছদ » অ্যানালাইসিস

শুরুতেই হোচট খেল পুঁজিবাজার



ঢাকা, ১০ এপ্রিল ২০১৭:
সপ্তাহের শুরুটা ভালো হলোনা। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের নিম্নমুখী ধারাভাহিকতায় লেনদেন হয়েছে পুঁজিবাজারে। এদিন সূচকের পাশাপাশি কমেছে লেনদেন। দুপুর ১২টা পর্যন্ত সূচকের স্বাভাবিক ওঠানামায় লেনদেন হলেও তারা ধারাবাহিকতা ধরে রাখেনি। দুপুর ১২টার পর থেকেই সূচক একটানা কমেছে। যে কারণে দিনশেষে সূচকের পাশাপাশি লেনদেন কমেছে। একই সঙ্গে কমেছে অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ারদর ও বাজার মূলধন। সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে সূচকের নিম্নগতির কারণে অনেকেই হাতে থাকা শেয়ার ছেড়ে দেয়নি। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের ধারণা বাজারের এই নিম্নগতি কাটিয়ে ওঠবে। তাই তারা কম দরে শেয়ার বিক্রি না করে ধরে রেখেছে। এর ফলে লেনদেনের পরিমাণ কমেছে। ডিভিডেন্ডের মৌসুমে বাজার খুব একটা বৈরি আচড়ন করবেনা এমন ধারণা থেকে বিনিয়োগকারীরা শেয়ার না বিক্রি করে ধরে রাখছে বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।


বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, গতকাল ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্য সূচক ৩৫.৬১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৫৭০০.৭৯ পয়েন্টে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৮.৪৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৩০৪.২৬ পয়েন্টে। আর ডিএস-৩০ সূচক ১৪.৬৩ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ২১১৯.৫৬ পয়েন্টে। আগের কার্যদিবসে ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্য সূচক ২০.৫১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৫৭৩৬.৪০ পয়েন্টে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৪.৪৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৩১২.৭১ পয়েন্টে। আর ডিএস-৩০ সূচক ৪.৯৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ২১৩৪.১৯ পয়েন্টে।


রোববার ডিএসইতে মোট ২৩ কোটি ২৩ লাখ ২০ হাজার ৩৮৩টি শেয়ার ১ লাখ ২৬ হাজার ৮১৯বার হাতবদল হয়, যার বাজারমূল্য ৭৭৭ কোটি ২৩ লাখ ২১ হাজার ৮৯৪.৪০ টাকা। আগের কার্যদিবসে ডিএসইতে মোট ২৫ কোটি ৭২ লাখ ৭৩ হাজার ২২২টি শেয়ার ১ লাখ ৪৩ হাজার ৮০৯বার হাতবদল হয়, যার বাজারমূল্য এক হাজার ১৬ কোটি ৪৪ লাখ ১৪ হাজার ৫৭১.৫০ টাকা।


রোববারডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নেয়া ৩২৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৮৬টির, কমেছে ২১৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৮টির। আগের কার্যদিবসে ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নেয়া ৩২৯টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৮৬টির, কমেছে ১৯৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৬টির।

ডিএসইর বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ৮০ হাজার ৮০৫ কোটি ৯৪ লাখ ২২ হাজার ৪১৬.৩৪ টাকা। আগের কার্যদিবসে ডিএসইর বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ৮২ হাজার ৩৫৯ কোটি ৬০ লাখ ৬৩ হাজার ২৫৮.০১ টাকা।

অন্যদিকে, রোববারসিএসই সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১১৩.০২ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৭৬৭১.২১ পয়েন্টে। এছাড়া সিএসসিএক্স ৬৭.৮৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১০৭১৯.৩৫ পয়েন্টে। এদিন সিএসই-৩০ ১১০.৮৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৫৮১০.৬৮ পয়েন্টে। সিএসই-৫০ ৯.১০ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৩১৬.৮৬ পয়েন্টে। এছাড়া সিএসসিআই ৯.৩৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১১৮৮.২৭ পয়েন্টে।


আগের কার্যদিবসে সিএসই সার্বিক সূচক ৬৭.১৬ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৭৭৮৪.২৪ পয়েন্টে। এছাড়া সিএসসিএক্স ৪২.২২ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১০৭৮৭.১৮ পয়েন্টে। এদিন সিএসই-৩০ ৪৯.০৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৫৯২১.৫৫ পয়েন্টে। সিএসই-৫০ ৩.৪৯ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৩২৫.৯৭ পয়েন্টে। এছাড়া সিএসসিআই ৩.৭৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১১৯৭.৬২ পয়েন্টে।


রোববারসিএসইতে ১ কোটি ৬৩ লাখ ৬০ হাজার ৯০৩টি শেয়ার ১৫ হাজার ২৩১বার হাতবদল হয়, যার বাজারমূল্য ৪৭ কোটি ৪৭ লাখ ৯৯ হাজার ৪২৫.৫০ টাকা। আগের কার্যদিবসে সিএসইতে ১ কোটি ৮৭ লাখ ২ হাজার ৯৩২টি শেয়ার ১৮ হাজার ৬৬২বার হাতবদল হয়, যার বাজারমূল্য ৬০ কোটি ৯৭ হাজার ৬০০.১০ টাকা।


সিএসইতে মোট লেনদেন হওয়া ২৩৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের দর বেড়েছে ৬৯টির, কমেছে ১৪৮টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২০টির। আগের কার্যদিবসে সিএসইতে মোট লেনদেন হওয়া ২৪৯টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের দর বেড়েছে ৬৭টির, কমেছে ১৫৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৮টির।


রোববারসিএসইর বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ১৩ হাজার ১৬৮ কোটি ৮৫ লাখ ৭১ হাজার ৩৪২.৬০ টাকা। আগের কার্যদিবসে সিএসইর বাজার মূলধন ৩ লাখ ১৪ হাজার ২৫৯ কোটি ৯২ লাখ ৬৮ হাজার ২৫৪.১০ টাকা।




শেয়ারনিউজ/এসকে