Print
প্রচ্ছদ » বিশেষ সংবাদ

ঢাকা, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮:

মন্দা ও মন্থরতা কাটিয়ে ঘুরে দাড়ানোর অপেক্ষায় পুঁজিবাজার। কিন্তু হঠাৎ করেই নতুন দুঃসংবাদ এসেছে বিনিয়োগকারীদের জন্য। সূত্র বলছে, পুঁজিবাজারের বিনিয়োগকারীদের দুর্দিনেও আমানতকারীদের সুদিন ফিরে এসেছে। রীতিমতো ফোন দিয়ে টাকা রাখতে বলছেন ব্যাংক কর্মকর্তারা। বলছেন, ব্যাংকে আমানত রাখলেই সবচেয়ে আকর্ষনীয় মুনাফা দেয়া হবে। সঙ্গে বিশেষ কোন অফার তো থাকছেই। মূলত ঋণের চাহিদা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় ব্যাংকগুলোর কাছে আমানতের প্রয়োজনও বেড়েছে।

প্রয়োজন মেটাতে চলতি মাস থেকে আমানতের সুদহার বাড়াতে শুরু করেছে ব্যাংকগুলো। কোন কোন ব্যাংক জানুয়ারির প্রথম দিন থেকে বাড়িয়েছে আমানতের সুদহার। কোন কোন ব্যাংক আমানতের সুদহার ২ থেকে ৪ শতাংশ বাড়িয়েছে। ব্যাংকের পাশাপাশি নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোও আমানতের সুদের হার বাড়িয়েছে ২ থেকে ৫ শতাংশ। সঙ্গে দেয়া হচ্ছে বিশেষ অফার।

তবে, পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পুঁজিবাজারে শংকা থাকলেও মুনাফার কমতি নাই। যারা চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে আগ্রহী তারা পুঁজিবাজারেই বিনিয়োগ করবে।

এদিকে বর্তমানে বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধির হার গত পাঁচ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। এর আগে প্রকল্পসহ বিভিন্ন নামে ঋণ নিয়ে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ ও জমি কেনার ঘটনায় ২০০৯-১০ অর্থবছর হঠাৎ করে বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধি বেড়ে ২৪ দশমিক ২৪ শতাংশে ওঠে। তার আগের অর্থবছর ঋণ প্রবৃদ্ধি ছিল মাত্র ১৪ দশমিক ৬২ শতাংশ। বাড়তি চাহিদার কারণে ওই সময় ঋণ ও আমানতের সুদহার বাড়তে থাকে।

এরপরও নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোর তেমন কোনো পদক্ষেপ না থাকায় পরের অর্থবছর ২০১০-১১-এ ঋণ প্রবৃদ্ধি আরও বেড়ে ২৫ দশমিক ৮৪ শতাংশে ঠেকেছিল। ঋণ ও আমানতের সুদহার ব্যাপক হারে বাড়তে থাকায় ২০১২ সালে সব ব্যাংক ঋণ ও আমানতের সুদহারের একটা সীমা নির্ধারণ করলেও কাজ হয়নি।

শেয়ারনিউজ/