Print
প্রচ্ছদ » জাতীয়

থার্টি ফার্স্টে উন্মুক্ত স্থানে অনুষ্ঠান নয়




ঢাকা, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭:

থার্টি ফার্স্ট নাইটে (৩১ ডিসেম্বর) উন্মুক্ত স্থানে কোনো অনুষ্ঠান করা যাবে না। ওই দিন সন্ধ্যা থেকে পরদিন সকাল পর্যন্ত রাজধানীর সব বার (পানশালা) বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

তিনি বলেন, ইংরেজি নববর্ষ উপলক্ষে কোনো উন্মুক্ত স্থানে বা বাড়ির ছাদে কোনো সমাবেশ, গান-বাজনা করা, আতশবাজি ফোটানো সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ৩১ ডিসেম্বর রাত ৮টার মধ্যে গুলশান এলাকা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় অবস্থানরত বহিরাগতদের এলাকা ছাড়তে হবে। আর স্থানীয়রা রাত ৮টার মধ্যে নিজ নিজ এলাকায় প্রবেশ করবেন।

মঙ্গলবার ডিএমপি সদর দফতরের সম্মেলন কক্ষে বড়দিন ও ইংরেজি নববর্ষ উপলক্ষে নিরাপত্তা-ট্রাফিক সংক্রান্ত সমন্বয় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, যদি কেউ চার দেয়ালের মধ্যে নববর্ষ উদযাপন করতে চান তাতে কোনো বাধা নেই। তবে অনুষ্ঠানের পূর্বেই পুলিশকে জানাতে হবে। রাস্তায় যদি কেউ অপ্রীতিকর কাজ করে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

তিনি বলেন, ৩১ তারিখ সন্ধ্যা থেকে পরের দিন সকাল পর্যন্ত রাজধানীর সব বার বন্ধ থাকবে। কেউ এই নির্দেশ অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি বলেন, ওই দিন গুলশান এলাকায় প্রবেশের জন্য কাকলী ও আমতলী ক্রসিং দিয়ে যেতে হবে। বের হতে যে কোনো পথ ব্যবহার করা যাবে। রাত ৮টার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টিকার ব্যতীত কোনো গাড়ি প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। পায়ে হেঁটে প্রবেশের ক্ষেত্রে আইডি কার্ড প্রদর্শন করতে হবে।

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় উৎসব ‘বড়দিন’ এবং ইংরেজি নববর্ষকে (থার্টি ফাস্ট নাইট) ঘিরে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ। রাষ্ট্রের ও শহরের নিরাপত্তায় পুলিশের কোনো নমনীয়তা নেই।





শেয়ারনিউজ/এআর