Print
প্রচ্ছদ » জাতীয়





ঢাকা, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭:

স্বাধীনতাবিরোধী, যুদ্ধাপরাধীদের মদদ দাতা ও দুর্নীতিবাজদের কখনই ভোট দেবেনা এদেশের জনগন বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বিজয় দিবসের আলোচনা সভায় একথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি যুদ্ধাপরাধীদের যেমন ক্ষমতায় বসিয়েছিলো, তেমনি তাদের হাতে জাতীয় পতাকাও তুলে দিয়েছিল। যারা মুখে স্বাধীনতার কথা বলে অথচ যুদ্ধাপরাধীদের সন্তানদের রাজনীতিতে নেয় তাদের ক্ষমতায় আসার স্বপ্ন নিয়েও প্রশ্ন রাখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই দেশের মানুষ যেন ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্রমুক্ত হয়। আমার দেশেল ছেলেমেয়েরা লেখাপড়া শিখবে। আজ ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করেছি। বিজ্ঞান-প্রযুক্তিতে শিক্ষা নিয়ে দেশের মানুষ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, সেই উন্নতি যারা চান, তারা কি কখনও যুদ্ধাপরাধীদের লালন-পালন করা, তাদেরকে মন্ত্রী বানানো বা আগুনে পুড়িয়ে মানুষ হত্যাকারীদের সমর্থন করতে পারে, না ভোট দিতে পারে? এমন মানুষদের কেউ কখনও ভোট দিতে পারে না।

যারা সৃষ্টি করে, যারা ত্যাগ স্বীকার করে, তাদের যে আন্তরিকতা থাকে, সেটা কিন্তু যারা উড়ে এসে ক্ষমতায় জুড়ে বসে, কিংবা অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে, তাদের মধ্যে থাকে না।

তিনি বলেন, তারা ভোগ বিলাসে জীবন কাটায়, দেশের অর্থ বিদেশে পাচার করে। সিঙ্গাপুর কোর্ট এবং আমেরিকার ফেডারেল কোর্টই বলেছে যে খালেদা জিয়ার ছেলেরা মানি লন্ডারিং করে। এটা তাদের কাছে ধরা পড়েছে, যেটাকে আমরা উদ্ধার করেছি।

এরা কোন মুখে জনগণের কাছে গিয়ে দাঁড়াবে? কোন মুখে জনগণের কাছে ভোট চাইবে? বাংলাদেশের জনগণ এই স্বাধীনতা বিরোধী, দুর্নীতিবাজ, আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে দেয়া, যুদ্ধাপরাধীদের মদদ দানকারীদের বাংলাদেশের মানুষ কখনও ভোটও দেবে না, এরা কোনোদিন ক্ষমতায় আসতেও পারবে না।

বাংলার মানুষের ভাগ্য নিয়ে আর কখনও কেউ ছিনিমিনি খেলতে পারবে না, ছিনিমিনি খেলতে দেব না। এটাই বিজয় দিবসে আমাদের প্রতিজ্ঞা।