Print
প্রচ্ছদ » অর্থনীতি

ঢাকা, ১০ জানুয়ারি ২০১৮:

লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী রাজস্ব আদায় হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেন, চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রথম পাঁচ মাসে রাজস্ব আদায় আশানুরূপ হয়নি। তবে আগামী দিনগুলোতে এ অবস্থার পরিবর্তন হবে। এদিকে, কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের দুটি ইউনিট পূণর্বাসনসহ ৮০২ কোটি টাকা ব্যয়ে ৭টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন সরকারী ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

বুধবার সচিবালয়ে সরকারী ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি ও অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন অর্থমন্ত্রী। এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গত পাঁচ মাস রাজস্ব আদায় লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী হয়নি তবে আশা করছি এ অবস্থার পরিবর্তন হবে। লক্ষ্যমাত্রা সংশোধন করার করার কোনো পরিকল্পনা আছে কিনা-এ বিষয়ে তিনি বলেন নো। তবে রিভিশন যখন করব তখন দেখব, চিন্তা করব কী করা যায়। কিছু এ্যাডজাস্টমেন্ট হতে পারে। তিনি বলেন, মানুষ এখন স্বতঃস্ফূর্তভাবে কর দিচ্ছে, এ কারণে রাজস্ব আদায় নিয়ে তেমন কোন সঙ্কট তৈরি হবে না।

প্রসঙ্গত, চলতি অর্থ বছরে গত জুলাই থেকে নবেম্বর পর্যন্ত প্রথম পাঁচ মাসে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৮ হাজার ৭৫৮ কোটি টাকা ঘাটতি হয়েছে। জুলাই থেকে নবেম্বর পর্যন্ত সরকারের রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৮৪ হাজার ৬৬ কোটি টাকা। কিন্তু আয়কর, মূল্য সংযোজন কর এবং শুল্ক-এ তিন খাত মিলিয়ে ৭৫ হাজার ৩০৮ কোটি টাকা আদায় হয়েছে। চলতি অর্থবছরে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) মাধ্যমে সরকারের রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ২ লাখ ৪৮ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। যা আগের বছরের চেয়ে ৩০ শতাংশ বেশি।