Print
প্রচ্ছদ » অর্থনীতি

রপ্তানিতে বেড়েছে প্রবৃদ্ধি, কমেছে মোট আয়

ঢাকা, ১৪ নভেম্বর ২০১৭:

চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জুলাই-সেপ্টেম্বর প্রথম প্রান্তিকে রপ্তানি আয় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২ দশমিক ৮৪ শতাংশ কম হয়েছে। তবে গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৭ দশমিক ২৩ শতাংশ বেশি হয়েছে। অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পণ্য রপ্তানি করে আয় হয়েছে ৮৬৬ কোটি ২৭ লাখ ৩০ হাজার ডলার। সম্প্রতি রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

এতে দেখা যায়, ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) রপ্তানি আয় হয়েছে ৮৬৬ কোটি ২৭ লাখ ৩০ হাজার ডলার। অবশ্য এই সময়ের রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৮৯১ কোটি ৬০ লাখ ডলার। তবে গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে এ বছর রপ্তানি আয় ৭ দশমিক ২৩ শতাংশ বেশি। ওই সময়ে রপ্তানি আয় হয়েছিল ৮০৭ কোটি ৮৮ লাখ ২০ হাজার ডলার।

চলতি অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে রপ্তানি আয়ে প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ২৯ শতাংশ। আগস্টে রপ্তানি বাড়ে ১০ দশমিক ৭১ শতাংশ। দুই মাসে রপ্তানি খাতে প্রবৃদ্ধি হয় প্রায় ১৪ শতাংশ, লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে আয় বেড়েছিল ৮ শতাংশের মতো। কিন্তু সেপ্টেম্বর শেষে সেই প্রবৃদ্ধি নেমে এসেছে ৭ শতাংশে।

চলতি বছর সেপ্টেম্বর মাসে রপ্তানি আয় হয়েছে ২০৩ কোটি ৪১ লাখ ৩০ হাজার ডলার। যা গত বছরের সেপ্টেম্বরের চেয়ে ৯ দশমিক ৮৩ শতাংশ কম। আর লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২৬ দশমিক ৭২ শতাংশ কম।

সেপ্টেম্বর মাসে রপ্তানির লক্ষ্য ধরা হয় ২২৫ কোটি ৫৮ লাখ ৬০ হাজার ডলার। গত বছর সেপ্টেম্বরে আয় হয়েছিল ২৭৭ কোটি ৬০ লাখ ডলার।

চলতি অর্থবছরের জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে মোট রপ্তানি আয়ের মধ্যে ৮২ দশমিক ৪৬ শতাংশই এসেছে তৈরি পোশাক খাত থেকে। নিট পোশাক রপ্তানি থেকে আয় হয়েছে ৩৭৪ কোটি ৬৯ লাখ ৫০ হাজার ডলার। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৪ দশমিক ৩৭ শতাংশ বেশি। আর গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে আয় বেড়েছে ১০ দশমিক ১৮ শতাংশ। আর ওভেন থেকে এসেছে ৩৩৯ কোটি ৭১ লাখ ৭০ হাজার ডলার। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৫ দশমিক ১২ শতাংশ কম। তবে গত বছরের একই সময়ের চেয়ে আয় বেড়েছে ৪ শতাংশ।

অন্যান্য খাতের মধ্যে এই তিন মাসে হিমায়িত চিংড়ি রপ্তানি বেড়েছে ২৩ দশমিক ৪০ শতাংশ। কৃষিপণ্য রপ্তানি বেড়েছে ২১ শতাংশ। ওষুধ রপ্তানি বেড়েছে ১৯ শতাংশ। চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য রপ্তানি বেড়েছে ২ শতাংশ।

পাট ও পাটজাত পণ্য রপ্তানি বেড়েছে ১৫ দশমিক ৪৬ শতাংশ। কেমিক্যাল পণ্যে আয় বেড়েছে ৩ শতাংশ। হ্যান্ডিক্রাফট পণ্য রপ্তানি বেড়েছে ১৪ দশমিক ২৪ শতাংশ।

২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে রপ্তানি আয়ে মোট লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে তিন হাজার ৭৫০ কোটি ডলার। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে বাংলাদেশ পণ্য রপ্তানি থেকে তিন হাজার ৪৬৫ কোটি ৫৯ লাখ ডলার আয় করে, যা ছিল আগের অর্থবছর ২০১৫-২০১৬ এর চেয়ে ৩ দশমিক ৩৯ শতাংশ বেশি।

শেয়ারনিউজ/