Print
প্রচ্ছদ » অর্থনীতি

একনেকে ৮ প্রকল্প অনুমোদন



ঢাকা, ১১ এপ্রিল ২০১৭:

তিন হাজার ২৮৯ কোটি টাকা ব্যয়ে আটটি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এর মধ্যে জিওবি থেকে আসবে ২ হাজার ৪১২ কোটি ৪৪ লাখ টাকা, সংস্থার নিজস্ব তহবিল থেকে আসবে ৩৪ কোটি ৫৯ লাখ টাকা। আর প্রকল্প সাহায্য হিসেবে পাওয়া যাবে ৮৪২ কোটি ৪০ লাখ টাকা।মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত একনেকের বৈঠকে এসব প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা।বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।


পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, বৈঠকে পুলিশের আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন। এছাড়া সরকারি সব কর্মচারীর জন্য শতভাগ আবাসন সুবিধা নিশ্চিত করার কথাও বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।

অনুমোদিত প্রকল্পগুলো হচ্ছে উপকূলীয় শহর পরিবেশগত অবকাঠামো প্রকল্প, যা বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১ হাজার ৫৭ কোটি ৫১ লাখ টাকা।


অন্য প্রকল্পগুলো হলো রাজশাহী মহানগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার উন্নয়ন প্রকল্প, ব্যয় ধরা হয়েছে ১৭২ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। গুরুত্বপূর্ণ আঞ্চলিক মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্প (খুলনা জোন)। ব্যয় ধরা হয়েছে ৫৯৯ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। গুরুত্বপূর্ণ আঞ্চলিক মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্প (কুমিল্লা জোন), এর ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৭৬ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। গুরুত্বপূর্ণ আঞ্চলিক মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্প (রংপুর জোন), এর ব্যয় ধরা হয়েছে ৫৯৮ কোটি ১০ লাখ টাকা। কিশোরগঞ্জ-করিমগঞ্জ-চামড়াঘাট- মিঠামইন সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প, যার ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩২ কোটি ৫৩ লাখ টাকা, বরিশাল মেট্রোপলিটন ও খুলনা জেলা পুলিশ লাইন নির্মাণ প্রকল্প, যার ব্যয় ধরা হয়েছে ১৫২ কোটি ১০ লাখ টাকা, ময়মনসিংহ ও গোপালগঞ্জ দুটি স্বয়ংসম্পূর্ণ ১০ কিলোওয়াট এফএম বেতার কেন্দ্র স্থাপন প্রকল্প, এর ব্যয় ধরা হয়েছে ১০০ কোটি ৮ লাখ টাকা।


পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, চলতি অর্থবছরে নয় মাসে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বাস্তবায়ন হয়েছে ৪৫ শতাংশ, গত অর্থবছরে একই সময়ে যা ছিল ৪৪ শতাংশ।

মুস্তফা কামাল জানান, জুলাই থেকে মার্চ পর্যন্ত প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় হয়েছে ৫৩ হাজার ৮৬৪ কোটি টাকা, গত অর্থবছরে একই সময়ে ব্যয় হয়েছিল ৪১ হাজার ৯৭৫ কোটি টাকা। গত অর্থবছরের তুলনায় এবার ১১ হাজার কোটি টাকা বেশি ব্যয় হয়েছে।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, এডিপির বাস্তবায়ন বাড়াতে ইতোমধ্যেই অনেক সংস্কার আনা হয়েছে। প্রয়োজনে আরও সংস্কার আনা হবে।


এ সময় উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা সচিব জিয়াউল ইসলাম, সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য ড. শামসুল আলম এবং ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য জুয়েনা আজিজ।




শেয়ারনিউজ/এআর