Print
প্রচ্ছদ » বিনিয়োগকারীর কথা

চল্লিশের আগে সফল হতে স্টিভ জবসের ছয় মূলমন্ত্র

ঢাকা, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৭:

প্রযুক্তি দুনিয়ার অন্যতম পথিকৃৎ স্টিভ জবস। প্রয়াত এ প্রযুক্তিবিদ ৪০ পেরোনোর আগেই সফল উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন। এর পেছনে বেশ কিছু মন্ত্র কাজ করেছে তার জীবনে। তারকা উদ্যোক্তা হতে সবাই অগ্রগণ্যদের পরামর্শ নেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সবকিছু নিজের ওপরই নির্ভর করে। বয়স ৪০ পেরোনোর আগেই স্টিভ বেশ কিছু নিয়ম মেনে চলতেন। এগুলো থেকে আপনারাও শিক্ষা নিতে পারেন। জেনে নিন তার মন্ত্রের রহস্য।

১. প্রথমেই আপনার মনের মতো একটি কাজ বেছে নিতে হবে। তাহলে কাজের প্রতি ভালোবাসা আসবে। বিশ্বাস এবং ভালোবাসা ছাড়া কাজ করলে কখনও সফল হওয়া যায় না। এ চিন্তা ধারণ করতেন জবস। এখন পর্যন্ত এমন কাজের সন্ধান না পেলে অপেক্ষা করতে থাকুন। প্রিয়তমার প্রতি প্রেম এবং কাজের প্রতি ভালোবাসার মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই বলেই মনে করতেন স্টিভ। অনুভূতির ওপর নির্ভর করুন। মন কখনও মিথ্যা আশ্বাস দেয় না।

২. কম্পিউটার এবং সফটওয়্যারের উন্নয়ন ঘটতেই থাকবে। আশাবাদীদের শিক্ষার ধারাকে বদলে দেবে এগুলো। বিষয়টিকে এখন বেশ স্পষ্ট বলে মনে হয়। কিন্তু একসময় সাধারণ বিষয়ও বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে। জবস ঠিকই মনে করতেন, প্রযুক্তি এগিয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের শিক্ষার ধরনও পাল্টে গেছে।

৩. প্রযুক্তি কিছুই না। কিন্তু মানুষের প্রতি আপনার বিশ্বাস থাকতে হবে। কারণ একমাত্র মানুষই স্মার্ট এবং বুদ্ধিমান। তাদের হাতে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি তুলে দিলে তারা যেন বিস্ময়কর সব কাজ করে দেখাতে পারে। এ ধারণায় বিশ্বাসী ছিলেন স্টিভ। সত্যিকার অর্থেই আজকের প্রযুক্তিগত উন্নয়ন মানুষ ছাড়া সম্ভব হতো না। তাই বিনিয়োকারী, কর্মীবাহিনী এবং ক্রেতার প্রতি বিশ্বাস রাখতে হবে।

৪. ছোট ছোট জিনিসও বহুমূল্য রাখে বলে বিশ্বাস করতেন জবস। স্মার্টফোনে কলম ব্যবহারের জন্য স্টাইলাস এখন কে চান? কেউ-ই তা আর ব্যবহার করতে চান না। কিন্তু এমন একটি জিনিসকে সরিয়ে দিলে তা হারিয়ে যাবে। খুব সাধারণ একটি যন্ত্র। কিন্তু বহু কাজকে সহজ করে দিয়েছে একটি স্টাইলাস। কাজকে সহজ করতে একটি সাধারণ উপাদানও বহু প্রয়োজনীয়।

৫. বহু প্রযুক্তির মিশেলে একটি প্রতিষ্ঠান দাঁড় করাতে চাইলে এর প্রয়োজন নিয়মশৃঙ্খলা। কারণ এটি ছাড়া বছরের পর বছর উদ্ভাবনী শক্তিকে কাজে লাগানো যাবে না বলেই মনে করতেন স্টিভ। যে কোনো দুইটি ধারাকে এক করতে যারা চান, তারাই সফল হতে পারেন। আইডিয়া দারুণ বিষয়। কিন্তু এর নিয়মতান্ত্রিক বাস্তবায়ন এবং ভিন্ন বিষয় একতাবদ্ধকরণ ছাড়া সফলতা সম্ভব নয়।

৬. ক্রেতার চাহিদা তাৎক্ষণিক তৃপ্তি দেয়। স্টিভের তিন বছর লেগেছে নেক্স কম্পিউটার বানাতে। কিন্তু ক্রেতারা তা চাননি। তারা এমন জিনিস চেয়েছিলেন যা এক বছর হয়তো ব্যবহার করতে ভালো লাগত। কিন্তু তারপর আর চাহিদা থাকত না। তাই ক্রেতার চাহিদা সবসময় ঠিক হয় না। এ মন্ত্র ধারণ করতেন স্টিভ। ক্রেতার চাহিদাকে নিয়ে গভীরভাবে চিন্তা করতে হবে। ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে এবং ক্রেতার দীর্ঘদিনের তৃপ্তির কথা বিবেচনা করে এগোতে হবে আপনাকে। নয় তো দীর্ঘ মেয়াদে সফলতা ধরে রাখতে পারবেন না।

সূত্র : বিজনেস ইনসাইডার

বিনিয়োগকারীর কথা

এর সর্বশেষ খবর

স্বাস্থ্য

এর সর্বশেষ খবর