Print
প্রচ্ছদ » বিনিয়োগকারীর কথা

শেয়ারের লস রিকভার করার কার্যকরী উপায়

কে, সি, মন্ডল

কোন শেয়ার কেনার পর সেই শেয়ারটা যদি আপটেন্ড ছেড়ে ডাউনট্রেন্ডে গমন করে তখন তখন ঐ শেয়ারে স্টপলস প্রয়োগ করে লস এর পরিমান কমানো সম্ভব। কিন্ত যদি এমন হয় যে, স্টপ লস প্রয়োগ করা সম্ভব না হয় তখন দিন দিন লসের পরিমাণ বৃদ্ধি পেতে খাকে। এ লসের হাত থেকে রক্ষা পেতে বিসিয়োগকারীরা অনেক পদ্ধতি ব্যবহার করেন। নিচে সহজে ব্যবহারকরা যায় ও কার্যকরী কিছু পদ্ধতি উপস্থাপন করা হলোঃ

১। শেয়ারটি যে ডাউন চ্যানেলে চলছে বলে মনে হবে সে চ্যানেলের নিচের প্রান্তে টাচ করলে বাই এবং উপরের প্রান্তে টাচ করলে সেল এভাবে এগিয়ে চলা।

২। ভীত না হয়ে স্টং সাপোর্টে এসে বাউন্স করলে অধিক পরিমাণ কিনে এভারেজ ক্রয় মূল্য স্ট্রং সাপোর্টের কাছাকাছি আনা।

৩। নেটিং (একই শেয়ারে) করতে করতে এভারেজ ক্রয় মূল্য কমিয়ে আনা।

৪। শেয়ারটি বিক্রি করে সেই টকায় অন্য এক বা একাধিক আপট্রেন্ডের শেয়ার কেনা। (অন্য শেয়ারে কনভার্ট করা।

মন্তব্যঃ উপরোক্ত ৪টি পদ্ধতির মধ্যে সকল শেয়ারে সব সময় একই পদ্ধতি ব্যবহার করা যায় না। এটি শেয়ারের মুভমেন্টের উর ভিত্তি করে নির্ধারণ করতে হয় কখন কোন পদ্ধতি ব্যবহার করে লস রিকভার করব। আর পদ্ধতি সমূহ ভাল করে আয়োত্ব করতে না পারলে কাজের থেকে অকাজ বেশি হতে পারে। আর পদ্ধতিগুলো যখন ব্যবহার করা সম্ভব না হয় তখন একটি সাধারণ পদ্ধতি অবলম্বন করা যেতে পারে-

“চেয়ে চেয়ে দেখা ও যে সকল ডেভিডেন্ট দেয় তা গ্রহণ করা এবং কোন অবস্থাতেই পেনিক হয়ে অধিক লসে শেয়ার বিক্রি না করা।”

ঢাকা, ২৫ অক্টোবর ২০১৭/কে.আর