Print
প্রচ্ছদ » শেয়ারবাজার

ঢাকা, ১০ জানুয়ারি ২০১৮:

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে উন্নয়ন মেলার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ সরকার। জেলা ও উপজেলায় গ্রহীত উন্নয়ন, উদ্যোগ গ্রহণ, বাস্তবায়ন এবং উন্নয়ন সম্পর্কিত তথ্য জনগণের কাছে তুলে ধারা হবে মেলায়।

আগামী ১১ থেকে ১৩ জানুয়ারি এ মেলা অনুষ্ঠিত হবে। সরকারের উন্নয়ন মেলায় পুঁজিবাজারের সকল স্টেকহোল্ডার অংশগ্রহণ করবে। বুধবার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) ঢাকা অফিসে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) মুখপাত্র সাইফুর রহমান এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, 'অর্থনীতির উন্নয়নে প্রযুক্তি' প্রতিপাদ্য নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো মেলায় আমরা অংশগ্রহণ করব। এবারের মেলায় আটটি বিভাগীয় শহরসহ ৫ জেলায় মোট ১৩টি স্থানে অংশগ্রহণ করব।

সাইফুর রহমান বলেন, ভিন্ন ভিন্নভাবে মেলায় অংশগ্রহণ না করে পুঁজিবাজারের সকল স্টেকহোল্ডার এক সাথে মেলায় অংশগ্রহণ করে। আমরা ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, রাজশাহী, রংপুর, খুলনা, ময়মনসিংহ, বরিশাল, নরসিংদী, কুমিল্লা, নোয়াখালী (চৌমুহনী), গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জে অংশগ্রহণ করব।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, উন্নয়ন মেলায় পরিচালনা প্রধান প্রতিষ্ঠান হিসাবে ঢাকায় থাকবে সিডিবিএল, চট্টগ্রাম ও সিলেটে সিএসসি, রাজশাহী, বরিশাল ও খুলনায় আইসিবি, ময়মনসিংহে মশিউর সিকিউরিটিজ, নরসিংদীতে আমানত শাহ সিকিউরিটিজ, কুমিল্লা, নোয়াখালীতে (চৌমুহনী) ব্র্যাক ইপিএল সিকিউরিটিজ, গাজীপুরে আইডিএসি সিকিউরিটিজ, নারায়ণগঞ্জে লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ ও রংপুরে মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট সিকিউরিটিজ থাকবে।

পুঁজিবাজারের উন্নয়নের কথা তুলে তিনি বলেন, ২০০৯ সালের পর পুঁজিবাজারে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। যা আপনারা (সংবাদিক) সবাই জানেন, কিন্তু প্রত্যন্ত অঞ্চলের সবাই তা জানে না। উন্নয়ন মেলায় দর্শনার্থীদের পুঁজিবাজারের বিভিন্ন সংস্কারের কথা জানানো হবে।

সিডিবিএলের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক শুভ্র কান্তি চৌধুরী বলেন, সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রমকে দেশের প্রান্তিক মানুষের কাছে তুলে ধরতেই এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। তাই পুঁজিবাজারের উন্নয়ন সম্পর্কে মানুষকে জানাতে আমাদের জন্য এটি একটি ভালো সুযোগ। এর মাধ্যমে মানুষের মনে পুঁজিবাজার নিয়ে প্রচলিত ভুল ধারণা দূর করা সম্ভব হবে বলে আমি মনে করি।

আইসিবির মহাব্যবস্থাপক কামাল হোসেন গাজী বলেন, সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও সংস্থার উন্নয়ন কার্যক্রম জনগণের কাছে তুলে ধরতেই এ মেলার আয়োজন। আইসিবির পক্ষ থেকে মেলায় পুঁজিবাজারের উন্নয়নের বিষয়টি মানুষের কাছে তুলে ধরতে সার্বিক সহযোগিতা করা হবে বলে জানান তিনি।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মহাব্যবস্থাপক মো. সামিউল ইসলাম বলেন, মেলায় ব্যাপক জনসমাগম হওয়ার কারণে এর মাধ্যমে জনগণকে পুঁজিবাজারের উন্নয়ন সম্পর্কে অবগত করা সম্ভব।

সিএসইর উপমহাব্যবস্থাপক মো. গোলাম ফারুক বলেন, পুঁজিবাজারে বিগত সময়ে যেসব উন্নয়ন হয়েছে, সেগুলো খোলা চোখে সহজে দেখা না গেলেও মেলার মাধ্যমে জনগণ এ বিষয়ে জানতে পারবে।

বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) সাধারণ সম্পাদক খায়রুল বাশার আবু তাহের মোহাম্মদ বলেন, মেলার মাধ্যমে পুঁজিবাজারের উন্নয়ন মানুষের কাছে তুলে ধরার ভালো সুযোগ রয়েছে। পুঁজিবাজারের উন্নয়নে বিএমবিএর বিগত সময়ের ভূমিকা মেলার মাধ্যমে মানুষের কাছে তুলে ধরা হবে বলেও জানান তিনি।

ডিএসই ব্রোকারেজ অ্যাসোসিয়েশনের (ডিবিএ) সিনিয়র সহসভাপতি শরীফ আনোয়ার হোসেন বলেন, উন্নয়ন মেলা সফল ও সার্থক হোক এ প্রত্যাশাই করছি।

উল্লেখ্য, সফলভাবে উন্নয়ন মেলা আয়োজনের লক্ষ্যে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক মো. সাইফুর রহমানকে আহ্বায়ক, উপপরিচালক মো. জোবায়ের উদ্দিন ভূইয়াকে সদস্য সচিব ও পুঁজিবাজারের অন্য স্টেকহোল্ডারদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে