Print
প্রচ্ছদ » শেয়ারবাজার

সূচকের পর চাঙ্গা লেনদেন: রেকর্ডের অপেক্ষা

ঢাকা, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭:

সূচকের অব্যাহত উত্থানে রেকর্ড গড়েছে পুঁজিবাজার। কিন্তু তার পরেও লেনদেনে ছিল মন্থরতা। কিন্তু বুধবার (১৩ সেপ্টেম্বর) দেশের উভয় পুঁজিবাজারে উত্থান প্রবণতায় লেনদেন শেষ হয়েছে।এসময় ডিএসই’র সার্বিক লেনদেন বিগত সাড়ে ৭ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ অবস্থানে স্থিতি পেয়েছে। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে জানা গেছে।

বুধবার দিনশেষে ডিএসইতে মোট ১ হাজার ৪২৩ কোটি ৩৬ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। ডিএসইতে এ লেনদেন ৭ মাস ১৮ দিন বা ১৫৬ কার্যদিবসের মধ্যে সর্বোচ্চ। ডিএসইতে এর আগের সর্বোচ্চ লেনদেনটি হয়েছিলো চলতি বছরের ২৫ জানুয়ারি। ওই দিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিলো ১ হাজার ৫২৪ কোটি ৯৩ লাখ টাকা।

এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩৫ পয়েন্ট বেড়ে দাড়িয়েছে ৬১৮৪ পয়েন্টে। ডিএসইর অপর দুই সূচকের মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৬ ও ডিএসই-৩০ সূচক ১১ পয়েন্ট বেড়ে দাড়িয়েছে যথাক্রমে ১৩৭২ ও ২২১২ পয়েন্টে।

দিনশেষে ডিএসইতে হাত বদল হওয়া ৩৩১টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে শেয়ার ও ইউনিটের দর বেড়েছে ১২৫টির, কমেছে ১৭৪টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩২টির।

এদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৫১৩ পয়েন্ট বেড়ে দাড়িয়েছে ১৯১৯৫ পয়েন্টে। এছাড়া অপর সূচকগুলোর মধ্যে সিএসই-৫০, সিএসই-৩০, সিএসসিএক্স ও সিএসআই ১৫, ১৬১, ৯১ ও ৫ পয়েন্ট বেড়ে দাড়িয়েছে যথাক্রমে ১৪৩৫, ১৬৬৫৩, ১১৬০৩ ও ১২৪৯ পয়েন্টে।

সিএসইতে মোট ৭৭ কোটি ৮৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা আগের কার্যদিবস থেকে ১৯ কোটি ১৫ লাখ টাকা বেশি। আগের কার্যদিবস সিএসইতে লেনদেন হয়েছিলো ৫৮ কোটি ৭১ লাখ টাকার। আর হাত বদল হওয়া ২৬৫টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিটের দর বেড়েছে ১০৯টির, কমেছে ১৩৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২২টির।

শেয়ারনিউজ/