Print
প্রচ্ছদ » শেয়ারবাজার

ডিএসই’র নজরদারিতে ৫ কোম্পানি

ঢাকা, ১৭ জুলাই ২০১৭:

অস্বাভাবিক দর বৃদ্ধির কারণে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) নরজধারীতের রয়েছে তালিকাভুক্ত ৫ কোম্পানি। কোম্পানিগুলোর অব্যাহত উত্থানের কারণ জানতে এরই মধ্যে নোটিশ দিয়েছে ডিএসই কর্তৃপক্ষ। তবে, প্রত্যেকটি কোম্পানির পক্ষ থেকে দর বাড়ার কোন কারণ নাই বলে জানিয়েছে কোম্পানিগুলো।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঊর্ধ্বমুখী বাজারের তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর শেয়ার দর ঊর্ধ্বমুখী থাকবে এটা স্বাভাবিক। কিন্তু লোকসানি কোম্পানিগুলোর অব্যাহত উত্থান ও সর্বোচ্চ দরের রেকর্ড গড়া স্বাভাবিক নয়। এ জন্য স্টক এক্সচেঞ্জকে শুধু নোটিশের মাধ্যমে নজরধারী না করে তদন্ত কমিটি গঠন করা জরুরি। এতে করে কোন কোম্পানির শেয়ারে কারসাজি হলে কারসাজির সাথে সম্পৃক্তদের খুজে বের করা সম্ভব হবে।

জানা যায়, রহিমা ফুড, সায়হাম কটন, ইউনাইটেড পাওয়ার, পিপলস লিজিং ও দুলামিয়া কটনের দর বাড়ার কারণ জানতে চেয়েছে ডিএসই কর্তৃপক্ষ। ডিএসই কর্তৃপক্ষ বলছে কোম্পানিগুলোর শেয়ার দর বাড়ার গতি অস্বাভাবিক।

সায়হাম কটন :

গত ১৮ জুন কোম্পানিটির শেয়ার দর ছিল ১৬.৮ টাকা। এদিকে, ১৩ জুলাই কোম্পানিটির সর্বশেষ শেয়ার দর ছিল ২১.৮ টাকা। অর্থাৎ এসময় দর বেড়েছে ২৯.৭৬ শতাংশ দর বেড়েছে।


দুলামিয়া কটন :

গত ১ মাসে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়েছে ৩৬.৫৮ শতাংশ।১৮ জুন কোম্পানিটির শেয়ার দর ছিল ৮.২ টাকা। কিন্তু ১৬ জুলাই তা ইস্যু মূল্যের উপর উঠে ১১.২ টাকায় স্থিতি পেয়েছে।


রহিমা ফুড :

গত এক মাসে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়েছে ২৭.৫৭ শতাংশ। গত ১৯ জুন কোম্পানিটির শেয়ার দর ছিল ১৩৪.৯ টাকা। কিন্তু ১৬ জুলাই শেষে কোম্পানিটির শেয়ার দর ছিল ১৭২.১ টাকায় লেনদেন হয়েছে।

ইউনাইটেড পাওয়ার :

১০ জুলাই কোম্পানিটির শেয়ার দর ছিল ১৮১.৩ টাকা। কিন্তু ১৩ জুলাই শেয়ার দর হয়েছে ১৯০ টাকা। অর্থাৎ ৪.৭৯ শতাংশ দর বাড়াকে অস্বাভাবিক মনে করছে ডিএসই।

পিপলস লিজিং :

গত ২ জুলাই কোম্পানিটির শেয়ার দর ছিল ১০.৩ টাকা। কিন্তু ১৬ জুলাই ১২.১ টাকায় স্থিতি পেয়েছে। অর্থাৎ এসময় দর বেড়েছে ১৭.৪৭ শতাংশ বা ১.৮ টাকা।

শেয়ারনিউজ/আর.পি/কে.আর